KADAKH – A dark comedy exploring some dark sides of some bright people

বাংলা
কালি পুজোর সময়, চারদিকে চলছে ভীষণ উদযাপন। শহরের অলিগলি থেকে মানুষের মনের অলিগলি পর্যন্ত আলোয় উজ্জ্বল, উজ্জীবিত । এমন একদিন আপনি আপনার বন্ধুদের পরিবার এবং কাছের মানুষদের নিয়ে নিজের ফ্ল্যাটে পার্টি করবেন ঠিক করেছেন । সব কিছু প্ল্যান অনুযায়ী তৈরী , সকালে ফোন করে মদের ব্যাবস্থাও করে ফেলেছেন এমন সময় কলিং বেলের আওয়াজে দরজা খুলে দেখলেন একজন অপরিচিত মানুষ । সে আপনার সাথে কিছু ব্যক্তিগত কথা বলতে চায়। আপনি বিরক্ত হয়ে কোন অজুহাতে তাকে বিদেয় করবেন মনঃস্থির করলেন আর ঠিক তখনই যে এমন একটা কথা বলল যা আপনার টনক নাড়িয়ে দিল । তাকে ঘরের ভেতরে নিয়ে এসে বসালেন । চা বানাতে গিয়ে দুঃশিন্তায় মগ্ন হয়ে আকাশ পাতাল ভাবতে শুরু করে দিলেন । এরপর সেই ব্যক্তি কথায় কথায় এমন উত্তেজিত হয়ে গেল যে ব্যাগ থেকে বন্দুক বের করে আপনার দিকে নিশানা করে বসল । আপনি ভীষণ ঘাবড়ে গেলেন , আমতা আমতা করে দুটো কথা বলতেই সে চরম উত্তেজিত হতে উঠল । আপনাকে হতবাক করে দিয়ে সেই বন্দুকের গুলি দিয়ে নিজেরই ঘিলু উড়িয়ে দিল । আপনার সোফার পেছনে পরে রইল তার রক্তাক্ত মৃতদেহ যাকে আপনি আজকেই প্রথম দেখলেন । আপনি পুলিশের দারস্থও হতে পারবেন না তার কারণ আপনি নিজেও জানেন ! কিছুক্ষণের মধ্যেই সবাই চলে আসবে । আপনি এবার কী করবেন ?

বাস্তব জীবনে উপরিউক্ত পরিস্থিতি যতটা ভয়ের উদ্রেক করে, সিনেমায় সেই একই পরিস্থিতি তৈরী করে ততটাই উত্তেজনাময় মজা, Fun ride ! এমনই এক Fun ride এর গল্প নিয়ে আমাদের সামনে হাজির হয়েছেন পরিচালক এবং অভিনেতা রজত কাপুর । এর আগে রজত কাপুর পরিচালিত সিনেমা Ankho Dekhi দেখেই অনুধাবন করেছিলাম অভিনেতা হিসেবে উনি যতটা দক্ষ, পরিচালক হিসেবেও তিনি কোন অংশে কম যান না । ২০১৩ সালের ড্রামার পর এবার উনি হাত দিলেন ডার্ক কমেডিতে !
বলিউডে কমেডি জঁরে উল্লেখযোগ্য বেশ কিছু কাজ হলেও ” Dark Comedy” জঁরে ভাল কাজ হাতে গোনা কয়েকটাই হয়েছে বলে মনে হয় ।

এই রিভিউ এর প্রথম প্যারাগ্রাফ পড়ে যদি মনে হয় ইশ প্রথমেই তো গল্পটা স্পয়েলড হয়ে গেল তবে বলে রাখি না স্পয়েল হয়নি, ট্রেলারেও এই আত্মহত্যা দেখানো হয়েছে এবং সিনেমাটা দেখলে বোঝা যাবে, পার্টি তো আভি শুরু হুই হ্যা !
‘দিওয়ালি’ র সকালে সুনিলের ফ্ল্যাটে এসে ছায়ার স্বামী আত্মহত্যা করে । সুনিল ও ছায়া পরকীয়া সম্পর্কে জড়িত সেটা আমরা ট্রেলার দেখেই জানতে পারি । কিছুক্ষণের মধ্যে সুনিলের বউ মালতি চলে আসে রুমে এবং তার কিছুক্ষণ পরেই এক এক করে বন্ধুরা আসতে থাকে । ওরা আসার আগেই সুনিল একটা ঘরের ভেতর সেই মৃতদেহ লুকিয়ে রাখে, এরপর থেকে শুরু হয় আসল মজা ! সুনিলের বউ, কিংবা বন্ধুরা বা আত্মীয় স্বজনের কেউ কি জানতে পারবে এই ঘটনার ব্যাপারে ? এই প্রশ্নের উত্তর কে কেন্দ্র করেই Kadakh এর গল্প আবর্তিত হয় । তবে এই মূল গল্পের সাথে রয়েছে বেশ কিছু সাবপ্লট এবং দারুণ মজাদার ইভেন্ট এবং সংলাপ !

বন্ধুদের মধ্যে কথোপকথনে কখনো মজার ছলে আবার কখননো পরিবেশ উত্তপ্ত করে উঠে আসে বেশ কিছু সামাজিক সমস্যা ! যেমন –
★ আমাদের সমাজে ‘সিঙ্গেল মাদার’ দের কেমন নজরে দেখা হয়,
★ পরকীয়া সম্পর্ক, লিগাল সম্পর্কগুলোর ভিত কীভাবে নাড়িয়ে দেয়,
★ আত্মীয়রা কীভাবে মুখোশ পড়ে থাকে,
★ বই এর লেখকরা(সবাই নয়) আজকাল কিভাবে বই এর কোয়ালিটির দিকে তেমন নজর না দিয়েও সেই বইকে বেস্টসেলার বানানোর রাস্তা কীভাবে তৈরী করেছে ,
★ সর্বোপরি উপরে উপরে যতই মাখোমাখো বন্ধুত্ব দেখাই না কেন আমরা , কঠিন পরিস্থিতির মুখে পড়লে কিছুক্ষণ আগেও যেই বন্ধুকে ভালোবেসে জড়িয়ে ধরেছি সেই বন্ধুকেই গলা টিপে মারতেও পিছপা হই না !

এই সমস্ত ছাড়াও আরো ছোট ছোট মজার ঘটনা রয়েছে যা চোখে আঙুল দিয়ে আমাদের হিপোক্রেসিগুলোকে আমাদের সামনে তুলে ধরে ।
যেকোনো ডার্ক কমেডি থ্রিলার(!) সিনেমার সব চাইতে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হচ্ছে সিনেমার গতি । Kadakh শুরুর দৃশ্য থেকেই আমাদের উত্তেজনাময় মজাদার এমন এক দোলনায় তুলে দেয় যেখানে উঠে কিছুটা সময় আরামে নিঃশ্বাস নিতে না নিতেই আমার রুদ্ধশ্বাস পরিস্থিতি তৈরী হয়ে !
তবে এই সিনেমাও সমালোচনার উর্ধ্বে নয় । Kadakh নিয়ে এখনো পর্যন্ত তিন রকমের সমালোচনা দেখেছি । কেউ কেউ বলেন যে অনেক বেশি চরিত্রের সমাগম হয়েছে তাই সব চরিত্র ঠিকমত সময় পায়নি, কারো মতে শুরুর থ্রিল মাঝে এসে কমে গিয়েছে, আবার কিছু সিনেমাপ্রেমী বলেন যে যে শেষে তারা আরো কিছু (!) আশা করেছিলেন ।
আমার মতে সিনেমায় যতগুলো চরিত্র এসেছে তাদের মধ্যে গল্পের প্রয়োজনে যাদের গুরুত্ব যুতটুকু তাদের ওপর ততটুকুই প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে । তবে এটা আমারো মনে হয়েছে যে কিছু কিছু চরিত্রকে আরো বেশি এক্সপ্লোর করা যেত – যেমন Kalki Koechlin এর ইন্টারেস্টিং চরিত্র মাঝের দিকে যেমন সাসপেন্স তৈরী করেছে তাতে সেই চরিত্রের ওপর ভিত্তি করে আরো থ্রিলিং এলিমেন্ট আনা যেত । গল্পের মাঝে ড্রামার আধিক্য একটু বেশি হলেও তাতে মজা একদম নষ্ট হয়নি বরং বেশ একটা মজার পরিবেশ তৈরী হওয়াতে আবার চট করে রহস্যের দিকে গল্প ঘুরতেই বেশ একটা রোমাঞ্চ অনুভূত হয় ।
আর অবশেষে এটা বোঝাই যায় যে পরিচালক সম্পর্কের দ্বন্দ্ব কেই বেশী প্রাধান্য দিয়েছেন তাই শেষটা মন্দ লাগেনি । সেই ফুলদানিকে রূপক হিসেবে ব্যবহার করে আমাদের যা বোঝানোর বুঝিয়ে দিয়েছেন শেষে ।
এবার আসি অভিনয়ে । রনভীর শোরে আমার অন্যতম প্রিয় অভিনেতা ! No Smoking, Titli, Kadwi Hawa, A death in the gunj, Sonchiriya, এসব সিনেমার পর ওনার আর নতুন করে কিছু প্রমাণ করার নেই । Kaadakh এ উনি যা অভিনয় করেছেন তাতে এটাকে আমি ওনার ক্যারিয়ারের অন্যতম শ্রেষ্ঠ পার্ফরম্যান্স হিসেবে গণ্য করব ! টেনশনের মুহূর্ত গুলো জাস্ট অসাধারণ !
বাকি অভিনেতা অভিনেত্রীরা সকলেই বেশ যোগ্য সাপোর্ট দিয়েছেন তবে আমি বিশেষ করে উল্লেখ করব Malti র চরিত্রে Mansi Multani র কথা । কি দুর্দান্ত অভিব্যক্তি ফুটিয়ে তুলেছেন প্রত্যেকটা ফ্রেমে । ওনার আগামী প্রজেক্টের জন্য অপেক্ষা করব ।
সিনেমাটার প্রায় ৯৫% সিনেমা একটা ঘরের মধ্যে শুট করা যেটা সিনেমাটোগ্রাফির দিক দিয়ে খুবই চ্যালেঞ্জিং ব্যাপার । তবে একদম শুরুর দৃশ্য থেকেই সিনেমাটোগ্রাফার Rafey Mehmood ( Hasil, Ankho Dekhi, Bioscopewala) আমাদের বুঝিয়ে দিয়েছেন একটু অন্যরকম কিছু পেতে চলেছি আমরা । এডিটিং ভীষণ টাইট, প্রয়োজন নেই এমন দৃশ্য প্রায় নেই বললেই চলে, scene transition অ ভীষণ স্মুদ । ব্যাকগ্রাউন্ড স্কোর উত্তেজনার পারদ উপরে ওঠাতে বেশ ভাল সাহায্য করে ।
যারা Bheja Fry এর মত সিনেমা পছন্দ করেছেন তারা অবশ্যই দেখুন Kaddakh ! এমন subtle dark comedy খুব একটা দেখা যায় না বলিউডে !

Kadakh is streaming on Sony Liv .

©কৌশিক_দাস

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.